⭕️বাংলাদেশে ২০ লক্ষ কর্মসংস্থান ও ব্যবসার সুযোগ করে দিতে যাচ্ছি যার মাধ্যমে একেক জন প্রতি মাসে ঘরে বসেও প্রায় ১০ হাজার থেকে ৪২ লক্ষ টাকা বা তার চেয়েও বেশী যোগ্যতা অনুযায়ী আয় করতে পারবেন।এবং দেশ বিদেশের প্রবাসীরাও এই ব্যবসা বিনামূল্যে অংশগ্রহন করতে পারবে।এটি কোন MLM Business নয় তাই এই ধরনের কোন চিন্তা করবেন না।কারন যুগ যুগ ধরে আপনাদের চিন্তা ভাবনা আমি কয়েকদিনে পরিবর্তন করতে পারব না। এখানে সবাই আলাদা আলাদা Platform পাবেন।আর আগামী সপ্তাহে তা ভিডিও দিয়ে প্রকাশ করব।
কিভাবে আবেদন করবেন আর কিভাবে ব্যবসা ও আয় শুরু করবে।

⭕️যারা আবেদন করতে পারবেন :- আইনজীবি,যে কোন পেশার ব্যবসায়ী,ফেইসবুক ও ইউটিউব ব্যবহারকারী,বাসা/ঘরবাড়ির,ফ্ল্যাট এর মালিক ও ভাড়াটিয়া,যানবাহন এর মালিক,যানবাহন এর চালক,হোটেল, রেস্টুরেন্ট, বিউটি পার্লার,ট্যুর অপারেটর, ট্রাভেল এজেন্ট, পোশাক শিল্প, রেডিমেট গার্মেন্টস, এক্সপোর্ট জাতীয় পন্য,জরুরী সেবা, যে কোন ব্যক্তি যদি ইন্টারনেট এর জ্ঞান থাকে,লোকাল গাইড, ডেলিভারি সেবা, পর্যটন শিল্প, সাংবাদিক,প্রাইভেট শিক্ষক, এমনকি টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া পর্যন্ত যারা পাইকারি ব্যবসায়ী আছেন এবং আরও অনেক কিছু।আমি করোনা বিপর্যয় চলাকালীন ১% মুনাফা নিতেও মানসিক ভাবে প্রস্তুত নই।
চাকরি নয় এখন সময় এসেছে নিজেকে নিজেই আজ ও আগামীর জন্য প্রতিষ্ঠিত করা। সবাইকেই অনলাইনে প্রশিক্ষন দেওয়া হবে ১ ঘন্টা তারপর ১ মাসের মধ্যেই আপনারা শুরু করতে পারবেন।আমার এই প্লাটফর্ম টি দেশের জন্য উন্মোক্ত করে দেওয়া হবে।
আবেদনের যোগ্যতা:
১)ইন্টারনেট এর সাধারন ধারনা আর Income Tax Certificate থাকতে হবে।
যাদের আয়কর সনদ নেই তারাও অনলাইনের মাধ্যমে করে ফেলুন আর না পারলে আমার টিম আপনাদেরকে অনলাইনে দেখিয়ে দিবে।
আপনার মোবাইল দিয়েও করতে পারবেন আর কম্পিউটার বা টিপটপ থাকলে বেশী ভাল হবে।
আপনাদের সমস্ত মুনাফার সঠিক ট্যাক্স ও ভ্যাট যদি বাংলাদেশ সরকার পায় তাহলে দেশের জিডিপির ২% ঘাটতি দুর হবে আশা করি।
আরেকটি কথা দেশ সেবার জন্য গত ১ মাস ধরে আমার মা, বাবা, বোন এমনকি স্ত্রীর সংগে কথা বলা বাদ দিয়েছি। আমার কাছে কোন রাজনৈতিক দল বা ভিন্ন ধর্মের কোন পার্থক্য নেই। যার যার কর্ম তার তার ফল।
সেই জন্যেই আমার ৩৫ বছর জীবনে আজ দেশ বিদেশে ১৯ টির মতন কম্পানি করতে পেরেছি। জীবনে শুধু পরিশ্রম করেছি।আর আমার পরিবারের অবস্থা অনেক ভাল ছিল এবং আছে। তাদের একমাত্র ছেলে হিসেবে জীবনে আমার কিছু না করলেও কোন সমস্যা থাকত না।আমি সারাজীবন শুধু পরিশ্রম করেছি।পরিবার থেকে কোন সহযোগিতাও নেইনি। পরিশ্রম করে শুধু কর্মসংস্থান করেছি যেন সবাই সময়ের মূল্য বুঝতে পারে এবং জীবনে কিছু করতে পারে।
টাকার চেয়ে সময়ের মূল্য অনেক বেশী যদি আপনার সময় সঠিক ভাবে কাজে লাগাতে পারেন।
আসুন আগামীর বাংলাদেশ ও নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করুন।
আমার কাছে অনেক প্রমান ছিল সরকারের সমালোচনা করার কিন্তু যুগ যুগ ধরে সমস্যা গুলো কি সমালোচনা করলেই শেষ হয়ে যাবে?
আপনারা সবাই যখন দেশ কে ভালবাসবেন তখন সবাই আপনাদের ভালবাসবে।
নিজেকেই ত ভালবাসেন না আর দেশকে কি করে ভালবাসবেন? যদি নিজেকে ভালবাসতেন তাহলে সময়ের মূল্য অবশ্যই দিতেন।
আমি যদি ভাল কিছু করে যেতে পারি তাহলেই আমার তৃপ্তি আর এই তৃপ্তির জন্যই আমি ৯৫ টির অধীক দেশ শুধু ছুটেছি আর দেখেছি তারা কি করছে? কেন করছে? কিভাবে করছে? সময়ের সাথে যদি চলতে না পারেন তাহলে ১ বছর পর ত করোনার চেয়েও ভয়ংকর কোন সময় আসতে পারে তখন?
আমার কোন কিছুর প্রয়োজন নেই কারন আমার বিশ্বাস আমি যা পারি বা পেরেছি আমার জীবনে তা একমাত্র আল্লাহ চেয়েছিল বলেই পেরেছি।
আমার কোনদিন মন্ত্রী হওয়ার বা রাজনীতি করার প্রয়োজন ছিল না আর দেশের উন্নয়ন করতে পারলে ভবিষ্যতে প্রয়োজন হবে না।

⭕️কেন করছি দেশের জন্য ?
প্রধান কারন এই মুহুর্তে যেন ঘরে বসে উপার্জন করতে পারেন।উপার্জন এর জন্য ঘর থেকে বাহিরে গেলেই করোনা ভাইরাস তাহলে কিভাবে চলবেন?আপনারা যদি উপার্জন করে সঠিক ট্যাক্স ও ভ্যাট দিতে পারেন তাহলে দেশের জন্যই উপকার হবে।আর আপনারাও পরিবার নিয়ে বাঁচতে ও নিজের ভবিষ্যত গড়তে পারবেন ইনশাআল্লাহ।
➡️ আর একটা স্বপ্ন ছিল পৃথিবীর সকল দেশ যেন বাংলাদেশ পাসপোর্ট দেখলে সম্মান দেখায়।আমার এইটুকুই ইচ্ছা। একদিন সেই সময় আসবে হয়ত আমি থাকবনা পৃথিবীতে।

⭕️এই ইচ্ছাটা কেন?
➡️আমি পৃথিবীর সব দেশের এয়ারপোর্ট এ ভিআইপি লাউঞ্জ পাই। কিছু দেশ আছে প্রায় শতবারও যাওয়া হয়েছে আর যখনই ইমিগ্রেশন এ দেখে বাংলাদেশী পাসপোর্ট তখন অনেক সময় নেয়।আর একসাথে অনেক পাসপোর্ট ও অনেক দেশ ভ্রমনের জন্যেও অনেক প্রশ্নের মুখামুখি হয়েছি।যদিও আমার কোনদিন কোন সমস্যা হয় নি কিন্তু আমি সব সময় দেখতাম অনেক বাংলাদেশী সমস্যায় পড়ে যেত।যখন সাধারন পাসপোর্ট এত ভোগান্তি তাহলে আমাদের দেশে CIP,Diplomatic সুভিধা নিলেই অন্যদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ফিরে আসে না।
আমিও পারতাম অন্যদেশের পাসপোর্ট নিতে যেমন Antigua & Barbuda দেশে যদি আমি ১ লক্ষ ডলার দিতাম তাহলে স্বপরিবার ওদের দেশের পাসপোর্ট ৩ মাসে পেয়ে যেতাম।আবার ঐ পাসপোর্ট এ ১৫০ টি দেশে ভিসা ফ্রী প্রবেশের সুযোগ আছে।

আমি জন্মেছি যে দেশে সেই দেশের পরিচয় কিভাবে পরিবর্তন করতে পারি?
আপনি যেভাবে মুসলমান থেকে হিন্দু বা অন্য ধর্ম পরিবর্তন করতে পারবেন না।আমার কাছে দেশের পরিচয়টা এর চেয়েও অধীক যা বলে প্রকাশ করা যাবে না।
আমাদের ক্ষনিকের জীবন মরে গেলেই শেষ কিন্তু আমি মরার পরেও বাঁচতে চাই আপনাদের সাফল্যের মধ্যে।
সবাই শুধু দোষ খুঁজতে জানে কিন্তু আমি সারাজীবন ঐ দোষটা কেন করছে তার সমাধান খুঁজেছি।
⭕️আমি বাংলাদেশী ⭕️
⭕️আর কোন পরিচয়ের প্রয়োজন নেই⭕️
আমার জীবনে শুধু সহযোগিতা করেছি কিন্তু আল্লাহ ছাড়া কারও সহযোগিতা নেই নি।এখনও আমি ঘরে বসে রোজা রেখেও ১৪ ঘন্টা কাজ করি এবং করতে থাকব যেন আরও কিছু মানুষকে নতুন কোন কাজ বা ব্যবসা দিতে পারি।
➡️ছোটবেলায় ১টি কথা আমার মা বলত সব সময় আয় বুঝে ব্যয় করতে।আর আমি বলতাম ব্যয় বুঝে আয় করতে তাহলে কেও সময় নষ্ট করবেনা এবং তাই করেছি সব সময়।ধরুন আপনার প্রতিমাসে খরচ ১০ হাজার তাহলে আপনি আশা করবেন প্রতি মাসে ১০/১২ হাজার উপার্জন করতে অথবা প্রতি মাসে খরচ ৫০ হাজার তাহলে আপনি চেষ্টা করবেন ৫০/৬০ হাজার টাকা। কিন্তু যদি আপনার চাহিদা ও খরচ বৃদ্ধি করে ২ লক্ষ তখন আপনি চিন্তা করবেন ৩ লক্ষ আয় করতে।আপনাকে বলছিনা অপচয় করতে আপনাকে বলছি নিজেকে পরিবর্তন করতে।যদি নিজেকেই পরিবর্তন না করতে পারেন তবে আপনি পরিবার ও দেশের জন্য Extra Luggage যার ফলাফল এখন পাচ্ছেন।
দেশ ও দেশের মানুষ যদি চায় আমি প্রস্তুত আর আমি এখনও ঘরে Self Lockdown এ আছি।
যে পারে চাঁদের দেশে বসেও পারে আর আমাকে পারতেই হবে আপনাদের জন্য আর আমাদের দেশের জন্য।🙏

আপনারা অপেক্ষা করুন কয়েক দিনের মধ্যেই প্রকাশ করা হবে।এর মধ্যে সবাই E-Tin আর ইন্টারনেট সংযোগ প্রস্তুত রাখুন।

Source is Genuine & Posted from his Personal Page www.facebook.com/rajuahmeddipu :