গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত ২৮,৬৩৭ জন, মৃত্যু ৫৫১ জন

সাড়ে আট লক্ষ ছুঁতে চলেছে দেশে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের হিসেব অনুযায়ী, মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮ লক্ষ ৪৯ হাজার ৫৫৩। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৮ হাজার ৬৩৭ জন। এক দিনে আক্রান্তের নিরিখে যা সর্বোচ্চ।

দেশে ইতিমধ্যেই করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ২২ হাজার ৬৭৪ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫৫১ জনের। তবে আশার আলো এই যে, সংক্রমণ বাড়লেও সুস্থ হয়ে ওঠার হারও বৃদ্ধি পেয়েছে। ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ৩৪ হাজার ৬২১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৯ হাজার ২৮৬ জন।কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেব অনুযায়ী, সংক্রমণের দিক থেকে দেশের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৪৬ হাজার ৬০০। তার পরেই রয়েছে তামিলনাড়ু। সেখানে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৩৪ হাজার ২২৬। তার পরেই রয়েছে দিল্লি। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ১০ হাজার ৯২১ জন। তার পর রয়েছে গুজরাত (৪০,৯৪১), কর্নাটক (৩৬,২১৬), উত্তরপ্রদেশ (৩৫,০৯২), পশ্চিমবঙ্গ (২৮,৪৫৩)।

আক্রান্তের পাশাপাশি মৃত্যুও ধারাবাহিক ভাবে বাড়ছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৫৫১ জনের প্রাণ কেড়েছে করোনা। এ নিয়ে দেশে মোট মৃত্যু হল ২২ হাজার ৬৭৪ জনের। এর মধ্যে মহারাষ্ট্রেই মৃত্যু হয়েছে ১০ হাজার ১১৬ জনের। দিল্লিতেও মৃত্যু ধারাবাহিক ভাবে বেড়েছে। করোনার প্রভাবে সেখানে মোট তিন হাজার ৩৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। তৃতীয় স্থানে থাকা গুজরাতে মারা গিয়েছেন দু’হাজার ৩২ জন। তামিলনাড়ুতেও ধারাবাহিক ভাবে করোনায় মৃত্যু বেড়েছে। যার জেরে বেশ কয়েকটি রাজ্যকে টপকে তালিকার উপরের দিকে উঠে এসেছে দক্ষিণের এই রাজ্য। সেখানে এখনও অবধি ১৮৯৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এর পরই তালিকায় রয়েছে উত্তরপ্রদেশ (৯১৩), পশ্চিমবঙ্গ (৯০৬) ও মধ্যপ্রদেশ (৬৪৪), কর্নাটক (৬১৩)। এ ছাড়া শতাধিক মৃত্যুর তালিকায় রয়েছে রাজস্থান (৫০৩), তেলঙ্গানা (৩৪৮), হরিয়ানা (২৯৭), অন্ধ্রপ্রদেশ (৩০৯)।

পশ্চিমবঙ্গেও বাড়ছে সংক্রমণ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেব অনুযায়ী, রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২৮ হাজার ৪৫৩। মৃত্যু হয়েছে ৯০৬ জনের। সংক্রমণ ঠেকাতে ইতিমধ্যেই কন্টেনমেন্ট জোনগুলোতে সাত দিনের জন্য পূর্ণ লকডাউন জারি করেছে রাজ্য সরকার।