করোনা নিয়ে অ্যানিমেশন বানিয়েছে চীন

 

দ্রোহ অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বরাবরই চীনকে দুষছেন। ট্রাম্প দাবি করেছেন, চীন উহানের ল্যাবে এই ভাইরাস তৈরি করা হয়েছে।

যদিও এর সপে কোনও প্রমাণ দেখাতে পারেনি ট্রাম্পের দেশটি। পরে গোয়েন্দারাও জানিয়ে দেন, এই ভাইরাস মানুষের তৈরি নয়, বা জিনগত ভাবে কোনও পরিবর্তন করা হয়নি। একই কথা জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও। কিন্তু তার পরেও চীনকে আক্রমণ করতে এবং চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলতে ছাড়েননি ট্রাম্প। কড়া হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন চীনকে।

চুপ নেই চীনও। অ্যানিমেশন ব্যবহার করে করোনাভাইরাস প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রকে করা কটা করল চীন। অ্যানিমেশনটি অনলাইনে শেয়ার করেছে দেশটির সরকারি সংবাদপত্র জিনহুয়া। অ্যানিমেশনের নাম দেওয়া হয়েছে ‘ওয়ানস আপঅন আ ভাইরাস’।

জিনহুয়ার শেয়ার করা অ্যানিমেশনে দেখা যাচ্ছে, এক প্রান্তে মুখোশ পরে দাঁড়িয়ে আছে কয়েক জন যোদ্ধা। অন্য প্রান্তে স্ট্যাচু অব লিবার্টি। তার স্যালাইন চলছে।
কথোপকথনে যোদ্ধারা বলছে, ‘আমরা নতুন ভাইরাস আবিষ্কার করেছি। এটা ভয়ানক।’ স্ট্যাচু অব লিবার্টি পাল্টা জবাব দিয়ে বলছে, ‘তাতে কী হয়েছে? এটা তো নেহাতই এক ধরনের ফু।’ যোদ্ধারা সতর্ক করা সত্ত্বেও স্ট্যাচু অব লিবার্টি যেন নির্বিকার। এর পরই যোদ্ধারা বলে, ‘মাস্ক পরো।’ স্ট্যাচু অব লিবার্টিকে বলতে শোনা যায়, ‘পরব না।’ নানা রকম প্রস্তুতি নেওয়ার কথা বলে যোদ্ধারা। তাতেও স্ট্যাচু অব লিবার্টি পাত্তা দেয় না। যোদ্ধাদের ‘টিপিকাল থার্ড ওয়ার্ল্ড’ বলেও কটা করে স্ট্যাচু অবল লিবার্টি। এর কিছু ণ পরেই অ্যানিমেশনে দেখা যাচ্ছে, ধীরে ধীরে জ্বরে লাল হয়ে যাচ্ছে স্ট্যাচু অব লিবার্টি। তাঁকে স্যালাইন দিতে হচ্ছে।

স্ট্যাচু অব লিবার্টির এই অবস্থা দেখে যোদ্ধারা বলছে, ‘শুধু কি নিজেদের কথাই শুনবে?’ প্রত্যুত্তরে স্ট্যাচু বলল, ‘আমরা সব সময়ই সঠিক’। এ বার যোদ্ধারা বলল, ‘এই কারণেই তো আমেরিকানদের আমরা পছন্দ করি।’ এখানেই শেষ কথোপকথন।

এই অ্যানিমেশনের মধ্য দিয়ে পরোে ট্রাম্পকেই কটা করা হয়েছে বলে মনে করছেন কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। সাধারণ ফু ভেবে আমেরিকা যে নির্বিকার ছিল, সেই ঘটনাকেও তুলে ধরা হয়েছে এর মধ্য দিয়ে। গোটা বিশ্বের মধ্যে এখন আমেরিকাই করোনা সংক্রমণ এবং তাতে মৃত্যুর সংখ্যার নিরিখে শীর্ষে। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা