দেড় মাসের মধ্যে একদিনে সর্বনিম্ন মৃত্যু স্পেনে

দ্রোহ অনলাইন ডেস্ক

মহামারি করোনার প্রকোপ কমতে শুরু করেছে বিপর্যস্ত দেশগুলোর তালিকায় শীর্ষে থাকা স্পেনে। রবিবার দেওয়া দেশটির সরকারি হিসাব অনুযায়ী একদিনে নতুন করে স্পেনে প্রাণ হারিয়েছেন আরও ১৬৪ জন। গত ১৮ মার্চের পর দেশটিতে করোনায় একদিনে এত কম মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় করোনা পরিস্থিতি নিয়ে নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছে। দেশটিতে করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা এখন ২৫ হাজার ২৬৪; যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি, যুক্তরাজ্যের পর যা চতুর্থ সর্বোচ্চ।

গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সর্বনিম্ন মৃত্যু ছাড়াও স্পেনে নতুন করে এক হাজারের কম মানুষের দেহে করোনার উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। গতকাল রবিবার দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ১৬ হাজার ৫৮২ জন থাকলেও আজ তা বেড়ে হয়েছে ২ লাখ ১৭ হাজার ৪৬৬ জন। যুক্তরাষ্ট্রের ১১ লাখের পর আক্রান্তের দিক দিয়ে বিশ্বে যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে কমতে শুরু করায় সংক্রমণ মোকাবিলায় স্পেনে জারি করা কঠোর বিধিনিষেধ ধীরে ধীরে শিথিল করা হচ্ছে। প্রায় সাত সপ্তাহ পর দেশটির প্রাপ্তবয়স্ক মানুষেরা গত শনিবার থেকে বাড়ির বাইরে যাওয়ার অনুমতি পেয়েছে। এর আগে ২৭ এপ্রিলে দিনে একবার শিশুদের বাড়ির বাইরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়।

এদিকে শনিবার স্পেনের সরকার এক ঘোষণায় গণপরিবহনের ভেতর সবাইকে বাধ্যতামূলক মাস্ক পরার নির্দেশনা জারি করেছে। আগামীকাল সোমবার থেকে এই নির্দেশনা কার্যকর হবে। স্পেনের মতোই ইউরোপের অন্যান্য দেশেও সামাজিক দূরত্বের নির্দেশনা বলবৎ রেখেই লকডাউনসহ এ সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞাগুলো শিথিল করা হচ্ছে।